Happy Home & Healthcare Prokashoni

  সুষম খাদ্য

আইভি খান ওয়াহিদ || 2021-04-15 21:15:17

 মানবদেহে কলা ও কোষের বৃদ্ধি ও গঠনমূলক কার্যকলাপ, পুষ্টি, বিপাকে ইত্যাদিসহ দেহের যাবতীয় শরীরবৃত্তীয় কার্যবলি সুষ্ঠভাবে নিয়ন্ত্রণ করার জন্য আমিষ. শর্করা, চর্বি, খাদ্যপ্রাণ,অজৈব লবণ ও পানির যে নিদিষ্ট অনুপাতে সংমিশ্রণে খাদ্য প্রস্তুত করা হয় তাকে সুষম খাদ্য বলে। উদাহরণস্বরুপ দুধ ও ডিমের কথা বলা যায়। সুষম খাদ্যে দেহের বৃদ্ধি, ক্ষয়পূরণ ও শক্তি উৎপাদন ক্ষমতা রয়েছে। মানুষের দৈনন্দিন খাদ্যতালিকায় ভাত, রুটি, ডাল., আলু,শাক-সবজি, ফল, মাছ, মাংস প্রভৃতি এমনভাবে থাকা উচিত যেন তা আমাদের দেহের সকল শারীয়বৃত্তীয় কাজ সঠিকভাবে সম্পাদনে সাহায্য করে।

একজন পূর্ণবয়স্ক মানুষের দৈনিক প্রায় ২০০০-৩০০০ কিলোক্যালরি শক্তির প্রয়োজন। সুষম খাদ্য থেকে প্রাপ্ত শক্তির পরিমাণ নিম্নরুপ হওয়া উচিতঃ-

  • শর্করাঃ ১৬৬০ কিলোক্যালরি
  • চর্বিঃ ৪১০ কিলোক্যালরি
  • আমিষঃ ১০০ কিলোক্যালরি।

আর একজন পূর্ণবয়স্ক মানুষের দৈনিক সুষম খাদ্যতালিকা নিম্নরুপ-

আমিষজাতীয় খাদ্যঃ

মাছ বা মাংসঃ ৮৫-১০০ গ্রাম

ডালঃ ৭৫-৮৫ গ্রাম

ডিমঃ ১ টি

শর্করাজাতীয় খাদ্যঃ

শস্যজাতীয়ঃ ৪০০-৫০০ গ্রাম

শাক-সবজিঃ ১৫০ গ্রাম

চিনি বা গুড়জাতীয়ঃ ৫০ গ্রাম

চর্বিজাতীয়ঃ

তেল বা ঘিঃ ৫০ গ্রাম

দুধঃ ৫০০ গ্রাম

এছাড়াও প্রতিদিন ১ বা ২ টি টাটকা ফল এবং অন্তত ২ লিটার পানি প্রয়োজন।

Designed & Developed by TechSolutions BD